প্রযুক্তি

ভিপিএন কি? ভিপিএন কিভাবে কাজ করে – জেনে নিন

ভিপিএন নামটি কমবেশী সবাই শুনে থাকবেন। ভিপিএন এর পূর্ণরূপ ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক। অনেক সময় কিছু অ্যাপ্লিকেশন অঞ্চলভিত্তিক ব্যবহার করার সুবিধা দেওয়া থাকে। কিন্তু সেই অ্যাপ্লিকেশনটি যে অঞ্চলে এভেলেবেল নয় সে অঞ্চলের ব্যবহার করার জন্য ব্যবহার করতে হয় ভিপিএন। ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক নামটি থেকেই বোঝা যায় এটি ব্যবহারকারীর তথ্যগুলো গোপন করে। অর্থাৎ ব্যবহারকারী কোন ডিভাইস কিংবা আইপি অ্যাড্রেস ব্যবহার করে একটি অ্যাপ্লিকেশন এ প্রবেশ করছে বা একটি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করছে সেটি গোপন থাকে। অনেক সময় ব্লক করা ওয়েবসাইটগুলোতে প্রবেশ করার জন্য ভিপিএন ব্যবহার করতে হয়। ভিপিএন এর ব্যবহার ব্যবহারকারীকে ট্রেস করার হাত থেকে বাঁচায়।

ভিপিএন কি?

ভিপিএন ব্যবহারকারী এবং ইন্টারনেটের মধ্যে একটি নিরাপদ সংযোগ স্থাপন করে। যে ব্যক্তি ভিপিএন ব্যবহার করে তার সমস্ত ডাটা একটি এনক্রিপ্ট করা ভার্চুয়াল চ্যানেলের মাধ্যমে রুট করা হয় যার ফলে ব্যবহারকারী যখন ভিপিএন ব্যবহার করে তখন তার আইপি এড্রেসটি লুকায়িত থাকে। যে ব্যক্তি ভিপিএন ব্যবহার করে তার আইপি অ্যাড্রেস ছদ্মবেশ ধারণ করে এবং তার অবস্থান অদৃশ্য হয়ে থাকে।
কিছু ওয়েব সাইট আছে যেগুলো ক্ষতিকর সে সকল ওয়েবসাইটগুলোতে প্রবেশ করার সময় ভিপিএন ব্যবহার করলে আপনার ডিটেইলস সুরক্ষিত থাকে। আপনি একটি অ্যাপ্লিকেশনের বা একটি ওয়েবসাইটে প্রবেশ করলে আপনার ইমেইল এড্রেস এবং আইপি অ্যাড্রেসকে অ্যাপ্লিকেশনের মালিক বা ওয়েবসাইটের মালিকের কাছে চলে যায়। যখন আপনি ভিপিএন ব্যবহার করছেন তখন এই সুযোগ থাকে না।

আবার ভিপিএন ব্যবহার করে আপনি যে সকল অঞ্চলভিত্তিক অ্যাপ্লিকেশন সেবা দেওয়া হয়ে থাকে সে সকল এ্যাপলিকেশন এ প্রবেশ করতে পারবেন। কিছু কিছু অ্যাপ্লিকেশন বা ওয়েবসাইটে আঞ্চলিক সীমাবদ্ধতা দেওয়া থাকে। একটি নির্দিষ্ট অঞ্চলে থেকেই শুধুমাত্র সেই ওয়েবসাইট বা অ্যাপ্লিকেশনগুলো তে প্রবেশ করা যায়। কিন্তু ভিপিএন ব্যবহার করলে তা আপনার লোকেশন হাইড করে সে কারণে আপনি ওয়েবসাইট বা অ্যাপ্লিকেশনে নির্দ্বিধায় প্রবেশ করতে পারেন।

ভিপিএন কিভাবে কাজ করে?

যখন একটি ডিভাইস ভিপিএন এর সাথে কানেক্টেড হয় তখন সেই ডিভাইস অন্য কোন একটি কম্পিউটারের সার্ভারের সাথে নিজেকে সংযত করে যার ফলে সেই ডিভাইসটি ছদ্মবেশ ধারণ করে। আরি ছদ্মবেশ ধরনের প্রক্রিয়ায় মূলত ভিপিএন কানেক্ট করা। ভিপিএন কানেক্ট করে আপনার ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার যদিও গোপনেই টানেল এর তথ্য জানতে পাই কিন্তু সেটা নিয়ে প্রবেশ করতে পারে না। এর ফলে ব্যবহারকারী যেসকল ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে বা অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে সেগুলো ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার ও জানতে পারে না। ভিপিএন ব্যবহারের সময় সকল ডাটা এনক্রিপটেড হয়ে যায়।

ভিপিএন কি কি কাজে ব্যবহার করা হয়?

ভিপিএন সাধারণত নিজের তথ্য হাইড করতে বা নিজের তথ্য অন্যকে না জানতে দেওয়ার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়। একজন ব্যবহারকারী ভিপিএন ব্যবহার করে বেশ কিছু ভাবে তাকে লুকিয়ে রাখতে পারে। যে সকল কাজে ভিপিএন ব্যবহার করা হয় তা হল

  • নিজের প্রকৃত লোকেশন হাইড করতে
  • তথ্য নিরাপদ রাখতে
  • ওয়েবসাইটে প্রবেশের সময় তা গোপন রাখতে
  • আঞ্চলিক ভাবে সীমাবদ্ধ ওয়েবসাইট বা অ্যাপস এ প্রবেশ করতে

এ সকল ক্ষেত্রে ভিপিএন ব্যবহার করে একজন ব্যবহারকারী সুবিধা লাভ করে। এ সকল কাজে পাবলিক নেটওয়ার্ক ব্যবহার করা হয় অর্থাৎ একটি পাবলিক প্লেসে ওয়াইফাই ব্যবহার করার সময় ভিপিএন ব্যবহার করা উচিত । পাবলিক নেটওয়ার্ক ব্যবহার করলে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার আপনাকে ট্র্যাক করতে পারে অথবা আপনার প্রবেশকৃত ওয়েবসাইট গুলো কোনগুলো তা বুঝতে পারে। এক্ষেত্রে গোপনীয়তা রক্ষার্থে ব্যবহারকারী ভিপিএন ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া ব্যবহারকারী তার লোকেশন বা অবস্থান লুকিয়ে রাখতে পারেন। আপনি যে দেশে বসবাস করেন সে দেশের জন্য এভেলেবেল নয় এমন কোন অ্যাপস এ বা ওয়েবসাইটে প্রবেশের জন্য আপনাকে ব্যবহার করতে হবে ভিপিএন এর ফলে আপনি সকল ওয়েব সাইটে বা অ্যাপ্লিকেশন এ প্রবেশ করতে পারবেন। কিছু কিছু অ্যাপ্লিকেশন রয়েছে একটি নির্দিষ্ট আঞ্চলিক সীমাবদ্ধতার মধ্যে আবদ্ধ। এসকল অ্যাপ্লিকেশনের প্রবেশ করতে হলে আপনাকে সেই সকল দেশের সার্ভারে প্রবেশ করতে হবে। এক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করতে পারি ভিপিএন। ভিপিএন ব্যবহার করে পৃথিবীর প্রায় সকল দেশের সার্ভারে আপনি প্রবেশ করতে পারবেন এবং আপনার লোকেশন আইপি অ্যাড্রেস সকল কিছু গোপনীয় রেখেই ব্রাউজিং চালিয়ে যেতে পারবেন।

কিভাবে ভিপিএন ব্যবহার করা যায়?

ভিপিএন ব্যবহার করার জন্য আপনাকে নিম্নোক্ত পদ্ধতিগুলো অনুসরণ করতে হবে। বর্তমানে যে সকল ডিভাইস বাজারে পাওয়া যায় সে সকল ডিভাইসে ইনবিল্ট ভিপিএন দেওয়া থাকে। আপনাকে শুধুমাত্র অ্যাড্রেস বসিয়ে কানেক্ট করতে হবে ভিপিএন। মোবাইল অথবা কম্পিউটার এর যে কোন নেটওয়ার্ক কানেক্ট করার সময় ভিপিএন ব্যবহার করা যায়। এছাড়া বর্তমানে অনেক জনপ্রিয় ভিপিএন প্রোভাইডার রয়েছে যারা বাৎসরিক কিংবা মাসিক প্লানে ভিপিএন সার্ভিস প্রোভাইড করে থাকে। আবার অনেক জনপ্রিয় ভিপিএন আছে যেগুলো সম্পূর্ণ ফ্রি তে ব্যাবহার করা যায়। কিন্তু ভালো ভিপিএন সার্ভিস পাওয়ার জন্য আপনাকে অবশ্যই একটি পেইড সার্ভিস নেওয়া লাগবে। আবার আপনি ফ্রিতে সীমাবদ্ধ একটি ভিপিএন সার্ভিস পেতে পারেন।

বর্তমানে কিছু কিছু জনপ্রিয় ভিপিএন সার্ভিস প্রোভাইডার ক্রস প্লাটফর্মে জিপি এন্ড সার্ভিস প্রদান করে থাকছে। এতে করে আপনি একসাথে অনেকগুলো ডিভাইসে ভিপিএন ব্যবহার করতে পারবেন। আপনি ইচ্ছা করলে মোবাইলে এবং কম্পিউটারে একই ভিপিএন ব্যবহার করতে পারবেন। এসেছে আপনাকে শুধুমাত্র একটি ভিপিএন প্ল্যান কিনলে চলবে।

কিছু কিছু ক্ষেত্রে আপনার ব্রাউজারে সরাসরি ওপেন ভিপিএন ব্যবহার করতে পারবেন। ব্রাউজার এক্সটেনশন গুলো ব্যবহার করে খুব সহজেই ভিপিএন ইন্সটল করা যাবে আপনার পাওয়া যায়। প্রথমে ব্রাউজার এক্সটেনশন এগিয়ে ভিপিএন সার্চ করে একটি ভিপিএন সিলেক্ট করে সে ভি পি এন টি ইন্সটল করতে হবে। সাইনআপ করে নিলেই ভিপিএন ইনস্টল হয়ে যাবে ব্রাউজারে।

নিচে কয়েকটি জনপ্রিয় ভিপিএন প্রোভাইডার এর নাম উল্লেখ করা হলো
Express VPN
NordVPN
PROTON VPN
IP VANISH

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button