প্রযুক্তি

সার্চ ইঞ্জিন কি? সার্চ ইঞ্জিন কিভাবে কাজ করে – জেনে নিন

ীসার্চ ইঞ্জিন অর্থ ইন্টারনেটে কোন কিছু খুঁজে বের করার মাধ্যম। সহজ অর্থে সার্চ ইঞ্জিন হলো উত্তর দেওয়ার মেশিন। সার্চ ইঞ্জিনে যে সকল তথ্য জিজ্ঞাসা করা হয় অথবা প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করা হয় সার্চ ইঞ্জিন তার সংগ্রহে থাকা তথ্যগুলো প্রদর্শিত করে। সার্চ ইঞ্জিন গুলোর মধ্যে বর্তমানে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়। সার্চ ইঞ্জিন এর প্রদর্শিত হওয়ার জন্য সর্ব প্রথমে আপনার কনটেন্ট দৃশ্যমান হতে হবে। কোন কনটেন্ট যদি দৃশ্যমান না থাকে সে ক্ষেত্রে সার্চ ইঞ্জিন সেটিকে প্রদর্শন করবে না।

সার্চ ইঞ্জিন কিভাবে কাজ করে?

সার্চ ইঞ্জিন সাধারণত তিনটি ফাংশন এর মাধ্যমে কাজ করে। এর মধ্যে ক্রলিং, ইনডেক্সিং এবং রেংকিং এই তিনটি বিষয় গুরুত্বপূর্ণ।

  • ক্রলিং
  • ইন্ডেক্স
  • রেংকিং

ক্রলিং

যখন কোন ওয়েবসাইট থেকে নতুন একটি কনটেন্ট পাবলিশ করা হয় তখন সার্চ ইঞ্জিন ক্রলারস দের পাঠাই নতুন সেই সকল পেইজগুলো অথবা কনটেন্ট গুলো সার্চ ইঞ্জিন এর দৃশ্যমান করার জন্য। ক্রলারসরা মূলত এক ধরনের রোবট সার্চ ইঞ্জিনের কাজ করে। একটি ওয়েব সাইটের কনটেন্ট বিভিন্ন ধরনের হতে পারে। ছবি, ভিডিও কিংবা পিডিএফ ফাইল সবগুলোকেই ক্রলার লিংক এর মাধ্যমে আবিষ্কার করে। ক্রলারস একটি কনটেন্টকে করার জন্য প্রস্তুত করে। কনটেন্ট এ যদি কোনরকম সমস্যা না থাকে ক্রলার সেই কনটেন্ট গুলো কে ইনডেক্স এর জন্য সঠিক বলে বিবেচনা করে।

গুগল সার্চ ইঞ্জিন জনপ্রিয় এবং সর্বাধিক ব্যবহৃত একটি সার্চ ইঞ্জিন। ওয়েবসাইটের সকল কন্টেন্ট গুগল সার্চ ইঞ্জিনে দৃশ্যমান থাকে এবং যে সকল কনটেন্ট আপনি দেখাতে চান যদিও আপনি ইচ্ছাকৃতভাবে ইন্ডেক্স করেন নি সেগুলো অটোমেটিক ইন্ডেক্স হয়ে যায় ক্রলার দের দ্বারা। যেসকল কনটেন্ট আপনি দেখাতে চান না সে সকল কনটেন্ট ক্রলার রা ক্রল করেনা।
আপনার ওয়েবসাইটকে  কতটি ফলাফল দৃশ্যমান আছে সেটি দেখার জন্য গুগল সার্চ বার ব্যবহার করে “site:yourdomain.com” সার্চ করলে সার্চ বারের নিচে রেজাল্ট দেখাবে। এছাড়াও সার্চ ইঞ্জিন সম্পর্কে তো আপনার ওয়েবসাইটে অন্যান্য তথ্য গুলো জানতে গুগল সার্চ কনসোল ব্যবহার করে যাবতীয় তথ্য জানতে পারবেন।

আরো দেখুনঃ  অন পেজ এসইও(On-Page SEO) কি? কিভাবে অন পেজ এসইও করতে হয়?

অনেক সময় আপনার সাইট সার্চ রেজাল্টে দেখাতে নাও পারে। এর কারণ হিসেবে আপনার সাইটটি হয়তো ক্রল্ড হয়নি যা নতুন সাইট এর ক্ষেত্রে হয়ে থাকে। আপনার সাইটের কনটেন্ট হয়তোবা গুগোল এ রোবট খুঁজে পাচ্ছে না কিংবা খুঁজে পেতে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে সে ক্ষেত্রে আপনার সাইট এর কন্টেন্ট টি গুগল সার্চ রেজাল্ট দেখাবে না।

ইন্ডেক্স

সার্চ ইঞ্জিন এ যেসকল ইউ আর এল ইন্ডেক্স হয় সেগুলো সার্চ ইঞ্জিন স্টোর করে রাখে। সার্চ ইঞ্জিন এ একবার যে সকল ইউ আর এল ইন্ডেক্স হয় সে সকল কনটেন্ট গুলো সার্চ ইঞ্জিন এ থেকে যায় এবং পরবর্তীতে যখন সে বিষয়ে  সার্চ হয় তখন সেই কনটেন্টগুলো কিংবা ওয়েব পেইজ গুলো সার্চ ইঞ্জিন প্রদর্শন করে ।

রেংকিং

সার্চ ইঞ্জিন ইথাকা কন্টাক্ট গুলো কিভাবে রেঙ্ক করে এ বিষয়ে অনেকের অনেক রকম মতামত রয়েছে। গুগোল তাদের অ্যালগরিদম নিয়মিত চেঞ্জ করে এবং তাদের অ্যালগরিদম সম্পর্কে বুঝে উঠার পূর্বেই তারা আবারো তাদের অ্যালগরিদম চেঞ্জ করে। আর এই অ্যালগরিদম চেঞ্জ করার জন্য গুগোল এ কিভাবে কোন কনটেন্ট রেঙ্ক করে সেটি কেউ সঠিকভাবে বলতে পারেনা। তবে যেসকল কনটেন্ট এর কোয়ালিটি ভালো সে সকল কনটেন্ট গুলো অনেক ভালো রেঙ্ক করে গুগোল এ। আবার এসইও অনেক বেশি কাজে লাগে রেংকিং এর ক্ষেত্রে। গুগল সার্চ ইঞ্জিনে কোন কনটেন্ট রেঙ্ক করানোর জন্য কনটেন্ট এর কোয়ালিটি ভালো করতে হবে। কনটেন্ট এর এসইও ঠিক আছে কিনা সেটি দেখতে হবে কিওয়ার্ড ও সার্চ সম্পর্কে জানতে হবে।
কনটেন্ট রেঙ্ক করানোর জন্য এসইও এর ভূমিকা

আরো দেখুনঃ  অফ পেজ এসইও কি ? (Off Page SEO) কিভাবে করতে হয়?

একটি কনটেন্ট রেঙ্ক করানোর জন্য এসইও এর ভূমিকা অনেক বেশি। সার্চ ইঞ্জিনে যখন একটি সার্চ করা হয় তখন হাজার হাজার রেজাল্ট প্রদর্শিত হয় সেই সার্চ এর বিপরীতে। তাহলে সার্চ ইঞ্জিনগুলো বুঝে কিভাবে কোন সার্চ করা হয়েছে এবং কোন বিষয়টি প্রদর্শন করতে হবে।
এটি সার্চ ইঞ্জিন বুঝে কনটেন্ট এর মধ্যে কি ধরনের তথ্য রয়েছে এবং কিওয়ার্ড ও এসইও এনালাইসিস করে। কনটেন্ট এর সাথে সার্চ করা বিষয়ের যতদিন থাকবে সেই কন্টাক্ট সার্চ করা রেজাল্টের জন্য কত উপরে প্রদর্শিত হবে। একটি কনটেন্ট ভিন্ন ভিন্ন সার্চ এর ক্ষেত্রে ভিন্ন ভিন্ন পজিশনে দেখাতে পারে এটির কারণ হলো সার্চ এর কাছাকাছি ফলাফল টি যে কনটেন্ট এর মধ্যে আছে কিংবা যে কন্টেন্টে ভালোভাবে উল্লেখ করা হয়েছে সেই কনটেন্ট গুলো আগে প্রদর্শিত হবে।

সার্চ ইঞ্জিনে রেংক করানোর জন্য অনেক সম্ভাব্য কারণ রয়েছে তবে সবচেয়ে ভালো ভাবে কাজ করে তিনটি।

  • ওয়েবসাইট লিঙ্ক করা
  • অনপেজ কনটেন্ট
  • রেঙ্ক ব্রেইন

ওয়েবসাইট লিঙ্ক করা

ওয়েবসাইটের কনটেন্ট গুলোকে অন্যান্য ওয়েব সাইট লিঙ্ক করার মাধ্যমে সার্চ রেজাল্টে ওয়েবসাইট আগে আনা যায়। ওয়েবসাইটের লিংক যত বেশি প্রচার করা যায় ওয়েবসাইটের কনটেন্টের বিশ্বস্থতা কত বেশি বাড়ে এ কারণে সার্চ রেজাল্টে সেটি আরও আগে প্রদর্শিত হয়।

আরো দেখুনঃ  ডিজিটাল মার্কেটিং কি ?

অনপেজ কনটেন্ট

একটি ওয়েব পেইজে থাকা কনটেন্ট যত ভালো হয় সেই কনটেন্ট রেঙ্ক করার সম্ভাবনা তত বেশি থাকে। তাই একটি কনটেন্ট লিখার সময় অবশ্যই ভালো মানের কনটেন্ট লিখতে হবে।

রেঙ্ক ব্রেইন

রেঙ্ক ব্রেইন গুগোল অ্যালগোরিদমের একটি মেশিন লার্নিং সিস্টেম। রেঙ্ক ব্রেইন একটি ছোট ইউ আর এল কে লক্ষ্য করে যেটি অন্যান্য প্রতিযোগী কনটেন্ট এর তুলনায় অনেক ভালো একটি কনটেন্ট। সেই ছোট ইউ আর এল এর কন্টেন্টটি কে রেংক করাতে সাহায্য করে রেঙ্ক ব্রেইন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button