প্রযুক্তি

সাইবার সিকিউরিটি এবং সাইবার ক্রাইম থেকে বাঁচার উপায়

সাইবারক্রাইম যে কারো সাথে হতে পারে এক্ষেত্রে সচেতনতা অবশ্যই প্রয়োজন। হয়তোবা আপনি ইতিমধ্যেই সাইবার ক্রাইমের শিকার হয়েছেন অথবা আপনি নিজেই কোন সাইবার অপরাধ সংগঠিত করেছেন। সাইবার অপরাধ আপনি নিজের অজান্তেই সংগঠিত করতে পারেন যেমন কোন পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করে অথবা ইন্টারনেট থেকে কোন পেইড সিনেমা বিনামূল্যে ডাউনলোড করে। এক্ষেত্রে পাইরেটেড সফটওয়্যার কিংবা পেইড সিনেমা বিনামূল্যে ডাউনলোড করার সময় ব্যবহারকারী যেমন নিজে সাইবারক্রাইম সংগঠিত করে তেমন এ সকল সফটওয়্যার বা সিনেমার লিংকের মাধ্যমে আপনার কম্পিউটারে বিভিন্ন ধরনের ভাইরাস প্রবেশ করছেন যার মাধ্যমে আপনিও সাইবার অ্যাটাক এর সম্মুখীন হতে পারেন।

সাইবার সিকিউরিটি কি?

সাইবার সিকিউরিটি বলতে যে সকল প্রোগ্রাম বা নেটওয়ার্ক অনুমতি ব্যতীত আপনার ডিভাইসে প্রবেশ করে আপনার ক্ষতি সাধন করে অথবা কোনো তথ্য চুরি করে কি সকল প্রোগ্রাম থেকে নিরাপত্তা নিরাপত্তা দেয় সাইবার সিকিউরিটি। সাইবার সিকিউরিটি বিভিন্ন সাইবার হামলা থেকেও ডিভাইস কে রক্ষা করে এবং বিভিন্ন তথ্য চুরি যাওয়া থেকে রক্ষা করে। যেহেতু বর্তমানে বেশিরভাগ মানুষ তাদের সকল তথ্য অনলাইনে রাখে এবং অনলাইন থেকে একজন ব্যক্তির প্রায় সকল তথ্য পাওয়া যায় তাই সাইবার সিকিউরিটি খুবই প্রয়োজন ।

আরো দেখুনঃ  সাইবার ক্রাইম কি? সাইবার ক্রাইম কাকে বলে ও এর বিস্তারিত - জেনে নিন

সাইবার সিকিউরিটির প্রয়োজনীয়তা

বর্তমানে বড় বড় কোম্পানিগুলো থেকে শুরু করে সরকারি বিভিন্ন কর্পোরেট এর তথ্যগুলো থাকে অনলাইনে। অনলাইন থেকে বিভিন্ন ধরনের সাইবার এটাক এর সম্মুখীন হয় এ সকল তথ্য গুলো। কোন সাইবার অপরাধী যেন এই সকল তথ্যগুলোতে অ্যাক্সিস না করতে পারে এবং তথ্য চুরি না করতে পারে সেজন্য সাইবার সিকিউরিটি খুবই প্রয়োজন। এবার হামলা থেকে জাতীয় নিরাপত্তা, স্বাস্থ্য এমনকি অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয় একটি দেশ। তাই সাইবার সিকিউরিটি ছাড়া এ সকল তথ্য হুমকির সম্মুখীন হতে পারে।

সাইবার সিকিউরিটির ধরন

  • নেটওয়ার্ক নিরাপত্তা
  • অ্যাপ্লিকেশন নিরাপত্তা
  • তথ্য নিরাপত্তা
  • পরিচয়ের নিরাপত্তা
  • ক্লাউড স্টোরেজের নিরাপত্তা
  • মোবাইল ডিভাইসের সুরক্ষা
  • ডাটাবেজ এবং অবকাঠামো নিরাপত্তা

তথ্য নিরাপত্তা

তথ্য নিরাপত্তা হল এমন এক ধরনের সাইবার সিকিউরিটি যার মাধ্যমে কোন কোম্পানি অথবা কোন ব্যক্তির যাবতীয় তথ্যের নিরাপত্তা দেওয়া হয়। সাইবার অপরাধীরা সেই ব্যক্তির তথ্য চুরি করতে পারে না।

ডাটাবেজ এবং অবকাঠামো নিরাপত্তা

যে সকল বিষয় নেটওয়ার্ক এবং ডাটাবেসের সাথে সম্পর্কিত সকল বিষয়ে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হলো ডাটাবেজ এবং অবকাঠামো নিরাপত্তা।

ক্লাউড নিরাপত্তা

ক্লাউড স্টোরেজের যে সকল তথ্য থাকে কিংবা বিভিন্ন ক্লাউড কম্পিউটিং এর সময় যে সকল সফটওয়্যার ব্যবহার করা হয় সে সকল সফটওয়্যার কিংবা তথ্যের নিরাপত্তা দেওয়া হল ক্লাউড নিরাপত্তা।

আরো দেখুনঃ  সাইবার ক্রাইম কি? সাইবার ক্রাইম কাকে বলে ও এর বিস্তারিত - জেনে নিন

নেটওয়ার্ক নিরাপত্তা

ব্যক্তি যে নেটওয়ার্ক ব্যবহার করেছে সে নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে সেই নেটওয়ার্কের মাধ্যমে অনেক সময় তার বিভিন্ন তথ্য চুরি করা হয়। আর এই নেটওয়ার্কের মাধ্যমে যেন অপরাধী ব্যক্তির ডিভাইস এ প্রবেশ না করতে পারে কিংবা ব্যক্তিগত তথ্য চুরি না করতে পারে সেই নিরাপত্তা প্রদান করা হলো নেটওয়ার্ক নিরাপত্তা।

সাইবারক্রাইম প্রতিরোধের উপায়

  • সাইবার ক্রাইম প্রতিরোধে কয়েকটি উপায় রয়েছে যেগুলো মেনে চললে সাইবার ক্রাইম এর সাথে যুক্ত হবেন না। ব্যক্তি নিজের অজান্তেই সাইবার ক্রাইম এর সাথে যুক্ত হয়ে যায় এ কারণে অনেক সময় বিভিন্ন জটিলতায় পড়তে হয়। আবার অনেক সময় সাইবার অ্যাটাক এর সম্মুখীন হয় ব্যক্তি এ সকল সাইবার নিরাপত্তা সম্পর্কে না জানার কারণে।
  • কম্পিউটারে পাইরেটেড সফটওয়্যার ব্যবহার করা যাবে না। যে সকল সফটওয়্যার পেয়েছি সেগুলো অবশ্যই কিনে ব্যবহার করতে হবে।
  • অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস ব্যবহার করলে গুগল প্লে স্টোর থেকে অ্যাপ ইন্সটল করতে হবে। Third-party অ্যাপ ইন্সটল করা যাবে না।
  • বিভিন্ন সাইটের কনটেন্ট গুলো দেখার জন্য প্রয়োজন হয় মোবাইল নাম্বার দেওয়ার সেসকল ওয়েবসাইটে অবশ্যই নিজের পার্সোনাল মোবাইল নাম্বার দিবেন না।
  • ইমেইল একাউন্টে যেকোনো স্পাম মেসেজ আসলে সেগুলো এড়িয়ে চলতে হবে ।
  • ওয়াইফাই ব্যবহারের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে এবং ওপেন ওয়াইফাই গুলো ব্যবহার না করাই ভালো।
  • মেমোরি কার্ড কিংবা পেনড্রাইভ প্রবেশ এর পূর্বে অবশ্যই ভাইরাস স্ক্যান করে নিতে হবে
  • কম্পিউটারের অপারেটিং সিস্টেম সবসময় আপডেট থাকতে হবে
  • কম্পিউটার একটি অ্যান্টিভাইরাস প্রটেক্টর এন্টিভাইরাস সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হবে। বর্তমানে বাজারে অনেক ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার পাওয়া যাচ্ছে যেগুলো আপনি ব্যবহার
আরো দেখুনঃ  সাইবার ক্রাইম কি? সাইবার ক্রাইম কাকে বলে ও এর বিস্তারিত - জেনে নিন

করতে পারেন ভাইরাস প্রতিরোধের জন্য।এসকল টিপসগুলো মেনে চললে অবশ্যই আপনি সাইবারক্রাইম এড়িয়ে চলতে সক্ষম হবেন। প্রযুক্তির সাথে সাথে সাইবার ক্রাইম এর মাত্রা অনেক বাড়ছে তাই সবসময় সাইবারক্রাইম সম্পর্কে সতর্ক থাকুন এবং সাইবার ক্রাইম নিজে সংগঠিত করবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button