প্রযুক্তি

২০২২ সালের সেরা মোবাইল ভিডিও এডিটিং অ্যাপ কোনগুলো -জেনে নিন

এন্ড্রয়েড ফোনে খুবই উন্নত মানের ক্যামেরা ব্যবহার করা হয় এবং ব্যবহারকারীরা এন্ড্রয়েড ফোনে ভিডিও করতে পছন্দ করে। স্মার্টফোনগুলো এখন ডিএসএলআর মাস্নেমার ভিডিও ধারণ করার সক্ষমতা রাখে। যারা নিয়মিত ভিডিও আপলোড করতে চান অথবা কনটেন্ট ক্রিয়েটর তাদের ভিডিও ধারণ করার পরে ইডিট করার প্রয়োজন পড়ে। যাদের কাছে পিসি কিন্তু ভালো মানের ভিডিও এডিট করতে চান তাদের জন্য প্রয়োজন ভিডিও এডিটর অ্যাপস। স্মার্টফোনের ভিডিও এডিটর অ্যাপস গুলো অনেক অ্যাডভান্সড হয়ে উঠেছে। স্মার্ট ফোন দিয়ে এখন ভালো মানের ভিডিও এডিট করা যাচ্ছে।

পিসিতে যাদের ভিডিও এডিট করার সক্ষমতা আছে তাদের অবশ্যই পিসি ব্যবহার করা উচিত কিন্তু যাদের একটি ভালো মানের পিসি নেই এবং মোবাইলে ভিডিও এডিট করতে চান তারা চমৎকার কয়েকটি অ্যাপ ব্যবহার করে ভালো মানের ভিডিও এডিট করতে পারবেন। যে অ্যাপগুলো এখান থেকেই কমেন্ট করা হবে তার সবগুলোই ফ্রী অ্যাপ । ব্যবহারকারী গুগল প্লে স্টোর থেকে বিনামূল্যে অ্যাপ গুলো ডাউনলোড করতে পারবে এবং প্রয়োজনীয় ভিডিও খুবই চমৎকার ভাবে এডিট করতে পারবেন।

কাইনমাস্টার (Kinemaster)

কাইনমাস্টার মোবাইল ভিডিও এডিট করার জন্য খুবই জনপ্রিয় একটি ভিডিও এডিটর অ্যাপ। কাইনমাস্টার খুবই জনপ্রিয় এবং 100 মিলিয়ন আরো বেশি ব্যবহারকারী কাইনমাস্টার ব্যবহার করে ভিডিও এডিট করে। কাইনমাস্টার এ প্রফেশনাল ভাবে ভিডিও এডিট করা যায় বলে এই ভিডিও যে কোন প্লাটফর্মে আপলোড করা যায় অথবা কনটেন্ট ক্রিকেটাররা যেকোনো কনটেন্ট ক্রিয়েট করতে পারবেন কাইনমাস্টার ব্যবহার করে। কাইনমাস্টার সম্পূর্ণ ফ্রি না হলেও ফ্রী ভার্শন টি ব্যবহার করে ব্যবহারকারীরা প্রয়োজন মতো ভিডিও এডিট করতে পারেন। যারা কাইনমাস্টার প্রিমিয়াম নিবেন তাদের জন্য রয়েছে আরও কিছু সুবিধা তবে এ প্রেমিয়াম ভার্শন পেইড। গুগল প্লে স্টোর থেকে কাইনমাস্টার ডাউনলোড করা যাবে । একটি ভাল মানের পিসি সফট্ওয়ারে যে সকল ভিডিও এডিটিং ফিচার থাকে কাইনমাস্টার প্রায় সবগুলো রয়েছে। তবে ফ্রিতে কাইনমাস্টার অ্যাপ ব্যবহার করে ভিডিও এডিট করলে তৈরি করা ভিডিও নিচে ডান কোনায় একটি কাইনমাস্টার জল ছাপ দেখা যায়। কাইনমাস্টার প্রিমিয়াম ভার্সনে জলছাপ দেখা যায় না।

kinemaster
কাইনমাস্টার

ফানিমেট (Funimate)

Funimate ভিডিও এডিটর ফানি ভিডিও গুলো তৈরি করতে খুবই কার্যকর। Funimate ভিডিও এডিটর অ্যাপ টি সম্পূর্ণ ফ্রী। Funimate ভিডিও এডিটর অ্যাপ ব্যবহার করে ভিডিওতে নতুন মাত্রা যোগ করা যায়। মোবাইলে ধারণ করা ভিডিও খুব সহজে এবং অনেক কম সময়ে এডিট করা যায়। Funimate ভিডিও এডিটর অ্যাপ সরাসরি ভিডিও শেয়ার করার অনুমতি দেয় যে কোন প্লাটফর্মে। Funimate ভিডিও এডিটর অ্যাপ এ রয়েছে অসংখ্য ইফেক্ট যেগুলো ব্যবহার করে আপনার ভিডিও আরও চমৎকার হয়ে উঠবে। এখন শর্ট ভিডিও মানুষ বেশি পছন্দ করে এবং শট ভিডিও বানানোর জন্য Funimate ভিডিও এডিটর অ্যাপ টি খুবই চমৎকার একটি অ্যাপ। ইতিমধ্যে একটি ইনস্টল করেছে প্রায় 10 মিলিয়ন মানুষ। Funimate অ্যাপটি গুগল প্লে স্টোর থেকে সরাসরি ডাউনলোড করা যাবে এবং এর গুগল প্লে স্টোর রেটিং 4.4।

funimate
ফানিমেট

কুইক (Quik)

স্মার্টফোনে ভিডিও ডাউনলোড করে সেই ভিডিও এডিট করার জন্য Quik খুবই জনপ্রিয়। Quik ব্যবহার করে ব্যবহারকারী যেকোনো ট্রাভেল ভিডিও তৈরি করতে পারে। 60 fps স্মুথ প্লেব্যাক ভিডিও তৈরি করা যায় Quik ভিডিও এডিটর এর মাধ্যমে। 100 মিলিয়ন বেশি ব্যবহারকারী ইতিমধ্যে Quik ভিডিও এডিটর অ্যাপ ইনস্টল করেছে। Quik সম্পূর্ন ফ্রি, যে কোনো ব্যবহারকারী খুব সহজেই গুগল প্লে স্টোর থেকে Quik ভিডিও এডিটর অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারবেন এবং চমৎকারভাবে ভিডিও গুলো তৈরি করতে পারবে। ভিডিও এডিট করার সময় ব্যবহারকারী যদি বিরতি নেন অথবা ভিডিও এডিট সম্পূর্ণ না করেন তাহলে এডিট করা ভিডিও ড্রাফ্ট হিসেবে সেট থাকে যা পরবর্তীতে ব্যবহারকারী পুনরায় এডিট করতে পারবেন।

quik-
কুইক

 

ভিএন ভিডিও এডিটর (VN Video Editor)

 

যে সকল অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা একটি ফ্রি ভিডিও এডিটর অ্যাপ খুঁজছেন তাদের জন্য VN Video Editor সেরা একটি অ্যাপ্লিকেশন। জেনে অবাক হবেন যে অন্যান্য ভিডিও এডিটর অ্যাপ গুলো যেখানে টেমপ্লেট এবং বিভিন্ন ইফেক্ট ব্যবহার করতে ইন অ্যাপ পারচেস করতে বলে সেখানে VN Video Editor তাদের ব্যবহারকারীকে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে একটি প্রদান করে এবং অ্যাপ এর সকল ফিল্টার ইফেক্ট টেমপ্লেট ফ্রিতে ব্যবহারের অনুমতি দেয়। সারা বিশ্বে প্রায় 10 মিলিয়ন এর ওপরে ব্যবহারকারী রয়েছেন যারা VN Video Editor অ্যাপ ব্যবহার করে ভিডিও এডিট করেন। সম্পূর্ন ফ্রি হওয়ায় যারা ফ্রিতে ভিডিও এডিটর অ্যাপ খুঁজছেন তাদের জন্য এটি একটি সমাধান হতে পারে।

vn
ভিএন ভিডিও এডিটর

ভিডিও শো(Video Show)

 

ভিডিও শো মোবাইলে ধারণ করা ভিডিওগুলো চমৎকার ভাবে এডিট করতে পারে এবং ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক সহ বিভিন্ন সাউন্ড দিয়ে ভিডিওকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে পারে। ভিডিও শো দিয়ে ভিডিও এডিট করা খুবই সহজ এবং সময় সাশ্রয়ী। ফোনের ভিডিও এডিটর অ্যাপ্লিকেশন গুলোর মধ্যে ভিডিও শো অন্যতম। যারা ব্লগ অথবা স্লাইডশো দিয়ে ভিডিও বানাতে পছন্দ করেন তাদের জন্য ভিডিও শো একটি খুবই কার্যকর হতে পারে। ভিডিও শো এর ফ্রী ভার্শন জলছাপ শো করে কিন্তু পেইড ভার্সনগুলোতে জলছাপ শো করে না। ভিডিও শো এর আরেকটি সমস্যা হল ভিডিও এক্সপোর্ট করার পরে কোয়ালিটি কিছুটা কমে যায়। তবে ফ্রিতে ভিডিও এডিটর অ্যাপ হিসেবে ভিডিও শো খুবই চমৎকার। সারা বিশ্বে প্রায় 100 মিলিয়ন এর ওপর ব্যবহারকারী ভিডিও শো অ্যাপ্লিকেশন টি ব্যবহার করছেন।

videoshow
ভিডিও শো

ইনশট (InShot)

ইনশট ভিডিও এডিটর অ্যাপ সম্পুর্ন ফ্রি একটি ভিডিও এডিটর অ্যাপ যা ব্যবহারকারীকে সহজ ইন্টারফেস প্রদান করে ভিডিও এডিট করার জন্য। ভালো মানের video-editor-software যে সকল ফিচার গুলো থাকে এবং যে সকল ইফেক্টগুলো থাকে তার সবই প্রায় রয়েছে ইনশট ভিডিও এডিটর অ্যাপস। অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইসে অ্যাপসটি খুব সাবলীলভাবে চলে এবং ভিডিও এক্সপোর্ট হয় খুব দ্রুত। ব্যবহারকারী তার পছন্দমতো ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক এড করে নিতে পারবেন এবং এই ভিডিও যে কোন প্লাটফর্মে আপলোড করতে পারবেন।

inshot
ইনশট

ভিভা ভিডিও (Viva Video)

ভিভা ভিডিও একটি চমৎকার ভিডিও এডিটর অ্যাপস। 1 মিলিয়ন ওপরের ব্যবহারকারী এই অ্যাপটি ব্যবহার করেন তাদের ভিডিও এডিট করার জন্য। ভিডিও এডিটর অ্যাপ টি তে রয়েছে বিল্টইন স্লো মোশন ভিডিও এডিটর এবং অসংখ্য টেমপ্লেট যেগুলো আপনাকে ভিডিও কলেজ অথবা স্লাইড দিয়ে ভিডিও বানাতে সাহায্য করবে। ফ্রি ভার্সন এ কিছু এড শো করে তবে খুব সহজেই অ্যাপটি কন্ট্রোল করা যায় অর্থাৎ ব্যবহারকারী স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে অ্যাপটি ব্যবহার করতে। ভিভা ভিডিও ব্যবহার করে তৈরি করা ভিডিও ডিলিট করা যায় যেকোনো সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে।

vivavideo
ভিভা ভিডিও

যারা এন্ড্রয়েড ফোনে খুব সহজেই ভিডিও এডিট করার জন্য অ্যাপ খুঁজছেন তাদের জন্য উপরের যেকোন একটি অ্যাপ সমাধান হতে পারে। 2022 সালে এন্ড্রয়েড ফোনের ফ্রি ভিডিও এডিটর অ্যাপস গুলি এখান থেকে খুঁজে নিতে পারেন এবং আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। 

আরো দেখুনঃ  ২০২২ সালের সেরা ৫ টি গেমিং ফোন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button