প্রযুক্তি

এন্ড্রয়েড ফোনে কাস্টম রম ডাউনলোড করার নিয়ম

এন্ড্রয়েড ফোনে যে রম ইন্সটল করা থাকে তা অনেক সময় আপডেটেড থাকে না। আপনার ডিভাইসকে আপডেটেড রাখতে এন্ড্রয়েড ফোনে কাস্টম রম ডাউনলোড ইনস্টল করে ফেলতে পারবেন। অ্যান্ড্রয়েড ফোনে পুরাতন  রম ইন্সটল থাকলে তা অনেক সময় নিরাপত্তা ঝুঁকি তৈরি করে। আপনি কাস্টম রম ডাউনলোড করে আপনার ফোনকে আপডেট করতে পারবেন । অনেকেই কাস্টম রম ব্যবহার করতে চান কিন্তু সঠিক নিয়মে কাস্টম রম ইনস্টল করতে না জানায় কাস্টম রম ব্যবহার করতে পারেন না।

কাস্টম রম কেন ইন্সটল করবেন

কাস্টম রম ব্যবহার করলে আপনার ফোন অনেকটা নতুন কেনা ফোনের মত হয়ে যাবে এবং সম্পূর্ণ আপডেটেড হয়ে যাবে। তাই কাস্টম রম ব্যবহার করে আপনি অনেক ফাস্ট করতে পারবেন আপনার ওল্ড মডেলের ফোনটিকে। কাস্টম রম এর আরো একটি সুবিধা হল এটি ব্যবহার করে এন্ড্রয়েড ভার্সন আপডেট করা যায়। তবে কাস্টম রম এর অসুবিধা রয়েছে যেমন আপনার ফোনে যদি ওয়ারেন্টি থাকে সেটি অ্যাভেলেবল থাকবেনা কাস্টম রম ব্যবহার করলে। এছাড়াও আপনি যে ব্রান্ডের ফোন ব্যবহার করছেন কাস্টম রম ব্যবহার করলে অথবা ইন্সটল করলে সে ব্যান্ড আপনার কোনো অভিযোগ নেবে না। তবে অনেক সুযোগ সুবিধা থাকায় অনেকেই কাস্টম রম ব্যবহার করতে চায়। কাস্টম রম ব্যবহার করে নিজের ফোনকে আরো আকর্ষণীয় বানানো যায়।

কাস্টম রম কখন ব্যবহার করা উচিত

 

যদি আপনার ফোনের এন্ড্রয়েড ভার্সন আর আপডেট না হয় এবং আপনার ব্র্যান্ড থেকে এন্ড্রয়েড এর কোন আপডেট না আসে সে ক্ষেত্রে আপনি কাস্টম রম ব্যবহার করতে পারবেন। এতে করে আপনার ফোনটি যেহেতু ওল্ড মডেলের ইতিমধ্যে হয়ে গিয়েছিল এবং আপনার ফোনে কোন আপডেট আসে না সেজন্য আপনার পুরাতন কোনটিকে আপডেট করে ফেলতে পারবেন কাস্টম রম ব্যবহার করে। কাস্টম রম অবশ্যই খুঁজে বের করতে হবে আপনার ফোনের মডেল অনুযায়ী। আপনি সার্চ করে আপনার ফোনের জন্য স্পিড অপটিমাইজ এবং আপডেটেড রম খুঁজে বের করতে পারেন। এরপর এটা ইন্সটল করতে পারেন। ডি গুগোলড থেকেও আপনি কাস্টম রম ব্যবহার করতে পারবেন আপনার ফোন এর মডেল অনুযায়ী।

কাস্টম রম কিভাবে ইন্সটল করতে হয়

 

এন্ড্রয়েড ফোনে কাস্টম রম ইন্সটল করার পূর্বে আপনাকে অবশ্যই ডাটা ব্যাকআপ রাখতে হবে। এরপরে বুটলোডার আনলক করতে হবে। ফোনগুলোতে বুটলোডার লক করা থাকে সেক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই রং ব্যবহারের পূর্বে আনলক করতে হবে বুটলোডার । এরপরে ইউএসবি ডিবাগিং চালু করুন। সেটিংস এ প্রবেশ করে ডেভেলপমেন্ট অংশ থেকে ইউএসবি ডিবাগিং চালু করতে পারবেন। অবশ্যই আপনার ফোনে ডাটা গুলো ব্যাকআপ করতে হবে এরপরে ফ্ল্যাশ করতে হবে ফোনকে। খেয়াল রাখতে হবে কাস্টম রম ইন্সটল এর পূর্বে যেন আপনার ফোনে চার্জ থাকে। যদি কাস্টম রম ইন্সটল এর পথে আপনার ফোনের চার্জ ফুরিয়ে যায় তাহলে সেই ফোন অবশ্যই অচল হিসাবে গণ্য হবে।

ওইএম আনলকিং চালু করতে হবে এবং কাস্টম রম ডাউনলোড করতে হবে। রম জিপ ফাইল ডাউনলোড করতে হবে এবং আপনার ফোনের মডেল অনুযায়ী জিপ ফাইল ডাউনলোড করে নিবেন । জিপ ফাইলটি ফোনের ইন্টারনাল স্টোরেজে রাখতে হবে।

কিভাবে কাস্টম রম ফ্ল্যাশ করবেন

প্লে স্টোর এ কিছু রম ফ্ল্যাশ করার অ্যাপ্লিকেশন পাওয়া যায় ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে সবচেয়ে নিরাপদ। কাস্টম রম ইন্সটল এর পূর্বে অবশ্যই আপনাকে কাস্টম রম কিভাবে ইন্সটল করতে হয় সে সম্পর্কে ভালো ধারণা নিতে হবে। কাস্টম রম ইন্সটল এর কোন অংশ ভুল হলে কাস্টম রম ইন্সটল করা কঠিন হয়ে পড়বে।

প্রথমে টি ডাবলু আর পি ইন্সটল করতে হবে এবার ফোন কি বন্ধ করতে হবে এবং কি w.r.t. হোমস্ক্রিন থেকে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ তৈরি করতে হবে। এবার কাস্টম রম ইন্সটল করতে পারবেন খুব সহজেই।

কাস্টম রম ইন্সটল করতে হলে আপনাকে অবশ্যই কাস্টম রম কিভাবে ইন্সটল করতে হয় সে সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে হবে। অনেক সময় ভুল পদক্ষেপ এ কাস্টম রম সঠিক ভাবে ইন্সটল হয় না এতে আপনার ফোনে কিছু অ্যাপ্লিকেশন সঠিকভাবে নাও চলতে পারে। কাস্টম রম ইন্সটল করার ক্ষেত্রে আপনি ইউটিউব ভিডিও অথবা ওয়েবসাইট কনটেন্টের সাহায্য নিতে পারেন।

আরো দেখুনঃ  ২০২২ সালের সেরা ৫ টি গেমিং ফোন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button